শীত লাগছে

চারদিকে কনকনে শীত। শীতে হাঁড় কাঁপড়ে মানুষের। সামর্থ্যবানরা শীতের আরামদায়ক পোশাকে নিজেদের মুড়িয়েও শীত নিয়ে নানা স্ট্যাটাসে ফেসবুক সরব করে তুলছেন।


একজন মানুষের জীবনের সেরা প্রাপ্তি নিশ্চয়ই অনেক টাকা নয়, বড় বড় ডিগ্রি নয়,রাজনৈতিক পোস্ট নয়, বড় চাকুরী নয়। একজন মানুষের সেরা প্রাপ্তি সাধারণ মানুষের নীরব ভালবাসা অর্জন করতে পারা। সেই ভালবাসা খুব সামান্য কিছুতেই অর্জন করা যায়।

মানবিক মানুষ সবসময় সেই নীরব ভালবাসার পিছনেই ছুটে।

আপনিও একজন মানবিক মানুষ বলেই আমার বিশ্বাস। মানুষ মানুষের জন্য,জীবন জীবনের জন্য।

সেই মানবিক মানুষের কিছু সামাজিক দায়িত্ব থাকে। সে একাই ভালো থাকেনা,ভালো খায়না,ভালো জামা পরেনা। সে তার ভালবাসা ও মানবিক হৃদয়ের উষ্ণতা ছড়িয়ে দেয় চারপাশে।

আমাদের আশেপাশে অনেক গরীব, অসহায়, শীতার্ত মানুষের বাস।

আপনি যদি একজন মানুষকে এই শীতে শীতবস্ত্র কিনে চুপিচুপি দিয়ে আসেন তবে সেটা একটা অনন্য মানবিক ব্যাপার হতে পারে।।

আপনার সামর্থ্য থাকলে অবশ্যই বেশি মানুষকে শীতবস্ত্র দিতে পারেন।

আপনার পাড়ার একটা পাগল বা পাগলি ঘুরে বেড়ায় হয়তবা তাকেই একটা শীতের কাপড় কিনে দিয়ে আপনি নীরবে মহান আল্লাহ এর ভালবাসা অর্জন করে নিতে পারেন।

আপনার এলাকায় অনেক ব্যক্তিত্বসম্পন্ন গরীব আছেন,বুড়ো মানুষ আছেন, রাতে একটা কিছু কিনে তাদের হাতে তুলে দিন, আমি নিশ্চিত আপনি এতটা প্রশান্তি আর কিছুতেই পাবেন না।

সবাই একজন মানুষ কে শীত বস্ত্র কিনে দিলে এই শীতে কেউ কষ্ট পাবেন না।

আজকে বিকেলে এক রুগী পেলাম। ছেলের গায়ে দামী জ্যাকেট,কানটুপি, হাত পা মোজায় ঢাকা অথচ মায়ের গায়ে খুব পাতলা একটা চাদর। আমি মুখের উপর সেই ছেলেকে জিজ্ঞেস করলাম, শীত কেমন? সেই ছেলে বললো, অনেক শীত।।সহ্য করা কঠিন। মানুষ মরে যাবে স্যার। আমি তার মায়ের গায়ের চাদরটা দেখিয়ে বললাম,আপনি এতগুলো শীতের কাপড় পড়েও আপনার শীত লাগছে।আর আপনার জন্মধাত্রী মা যার পায়ের নীচে আপনার বেহেশত, উনার শীত যে মানছেনা এই পাতলা চাদরে খেয়াল আছে।মায়ের চোখ ছলছল করে উঠলো আমার কথায়। ছেলেটি লজ্জায় চুপ হয়ে গেলো।

আমরা অনেকেই খেয়াল করিনা আমাদের মা বাবার শীতের কাপড় আছে কিনা। আপনাকেই জিজ্ঞেস করতে চাই,এই শীতে মা বাবার জন্য শীতের কাপড় কিনেছেন তো?? নাকি শুধু নিজেই দামী ব্লেজার জ্যাকেট কম্বলে আরাম খুঁজছেন? এমন হলে আপনার জন্য জাহান্নামের আগুন অপেক্ষা করছে।।

অনেকের বাসায় কাজের মেয়ে আছে। ওরা অবহেলিত থাকে। অনেক নারীনেত্রীর সন্ধান এই দেশে পাওয়া গেছে যারা নারী অধিকার নিয়ে কথা বলতেন অথচ তাদের হাতেই কাজের মেয়েটা সবচেয়ে বেশি নির্যাতিত। আপনার সন্তানের অনেক শীতের কাপড়। কাজের মেয়েটির জন্যও একটা শীতের কাপড় কিনে দিন। অনেকে নিজ সন্তানের পুরাতন কাপড় কাজের মেয়েকে দেন, এটা আমার কাছে অমানবিক মনে হয়। তাকে একটা নতুন কাপড় কিনে দিন। তার ছোট্ট অসহায় মনটাও আনন্দে ভরে উঠবে। সেই আনন্দে আপনার স্রষ্টা আপনার উপর খুশি হয়ে যাবেন।

আসুন আমাদের চারপাশে একটু উষ্ণতা ছড়িয়ে দেই। একজন সামর্থবান মানুষ একজন মানুষকে শীতের কাপড় কিনে দিলে কেউ এই শীতে কষ্ট পাবেনা। আর এভাবেই একটা দেশ হয়ে উঠতে পারে মানবিক মানুষ।

Enjoy
Free
E-Books
on
Just Another Bangladeshi
By
Famous Writers, Scientists, and Philosophers 
Our Social Media
  • Facebook
  • Twitter
  • Pinterest
Our Partners

© 2023 by The Just Another Bangladeshi. Proudly created by Sen