"তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ" হবে ইসলাম vs সভ্যতা

Collected article


3rd World War


ইতিমধ্যে আমেরিকা , ইউরোপ ও দক্ষিণ আফ্রিকায় এবং সর্বোপরি এশিয়ায় ও ছড়িয়েছে "ইসলামোফ্যাসিজম"।

ধর্মের নামে ফতোয়াবাজি , গণহত্যা , গণধর্ষণ ও জঙ্গী সংগঠনের নানামুখি বিভৎস তৎপরতায় সারাবিশ্বের মানুষের এক আতঙ্কের নাম ইসলাম।।


শুধুমাত্র নাইজেরিয়ার বোকো হারাম নামক ইসলামী জঙ্গী সংগঠন হত্যা করেছে সাত হাজার নিরীহ মানুষ ও শাবাব নামক আরেক সংগঠন ধর্ষণ করেছে প্রায় দুই হাজার নারীকে।।

ধর্মের জন্য মানুষ হত্যা ও গণ ধর্ষণ এ যেন শুধু ইসলামেই সম্ভব। ইসলাম ও মুসলমান এই দুটো শব্দ শুনলে অন্য ধর্মের মানুষরা ভয়ে আঁতকে উঠে।।

ইসলাম ও মুসলমান এই দুটো শব্দকে কি শুধু বিধর্মীরা ভয় পায় ??


আফগানিস্তান , পাকিস্তান ও বাংলাদেশের দিকে তাকালে আপনি দেখবেন মুসলমান সেইখানে মুসলমানের রক্ত খাচ্ছে। ধর্মের নামে জঙ্গীবাদ শুধু আফ্রিকায় নয় বরং পাকিস্তান , আফগানিস্তান ও বাংলাদেশ ও এর ব্যাতিক্রম নয়।।

মায়ানমারের রোহিঙ্গাদের উপর আক্রমণ দেখে আপনার যদি মনে। হতে থাকে যে বিধর্মীরা ইসলামের শত্রু তবে আপনি সম্পূর্ণ ভূল ভাবছেন।।


১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধের দিকে তাকান।।

পাকিস্তানীরা এই দেশের মানুষ কে কিভাবে হত্যা করেছিলো দুচোখ বন্ধ করে ভাবুন।।।


চীনের উইঘরে মুসলমান নির্যাতনের চিত্র দেখে আপনি হয়তো ভাবছেন মুসলমান এই পৃথিবীতে খুব অসহায় ।

কিন্তু আপনি যখন আফগানিস্তান ও পাকিস্তানের দিকে তাকাবেন তখন আপনার এই ভুল ভেঙে যাবে।।

বিধর্মীদের যুগ যুগ ধরে হত্যা করতে করতে মুসলমানরা তাদের সংখ্যা দুই থেকে তিন শতাংশে নামিয়ে এনেছে।।।

কিন্তু আপনি যখন সৌদি ও ইয়ামেন , সিরিয়া ও তুরস্ক দেখবেন তখন আপনার ধারণা পাল্টে যাবে।

মুসলমানের শত্রু বিধর্মী নয় বরং মুসলমান ।।

মাজহাব প্রতিষ্ঠার এই যুদ্ধ শুরু হয়েছে খলিফা ওমর কে হত্যার মধ্য দিয়ে।। আলী , ওসমান , হাসান ও হোসেন কেউ এর থেকে বাদ যায়নি।।

আরো পূর্বে গেলে দেখবেন যুদ্ধ করে মানুষ হত্যা করে এই ধর্ম কে প্রতিষ্ঠিত করা হয়েছে।।।


এক হাজার ৪০০ বছরের এই ইসলাম প্রতিষ্ঠিত হয়েছে লক্ষ কোটি মানুষের রক্তের উপর। সারা বিশ্বের অন্য ধর্মের মানুষের কাছে ইসলাম মানেই তাই সন্ত্রাস ও জঙ্গী।।

ইসলামের বিরুদ্ধে কথা বলে নিজ ধর্মের মুসলমান পর্যন্ত দেশছাড়া ও হত্যার শিকার হচ্ছে।।

একটা সময় খ্রীস্টানরা ও এমন করতো।।

খ্রীস্টান ধর্মের বিরুদ্ধে কেউ কিছু বললেই তাকে হত্যা করা হতো।।

পৃথিবী সূর্যের চারপাশে ঘুরে এই সত্যটা বলার জন্য গ্যালিলিও কে জেল ও পরে বিষপানে হত্যা করা হয়।।

চাঁদের নিজস্ব কোন আলো নেই এইসব সত্যি কথা যখন ধর্মের বিপক্ষে যায় তখনি শুরু হয় নির্যাতন।।

কিন্তু এইভাবে পৃথিবীতে কতোদিন ধর্ম টিকে থাকবে??


পৃথিবীতে যদি মানুষই না থাকে তবে এই ৪৩০০ ধর্মের সৃষ্টিকর্তাদের কি হবে ??


বিজ্ঞান যখন সারা বিশ্বে উন্নতির চরম শিখরে অবস্থান করছে তখন মুসলমান যুবকরা ধর্মের নামে একে অপরের কল্লা কাটছে। পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে লাভ জিহাদের নামে বিধর্মী মেয়েদের একপ্রকার ধর্ষণ করা হচ্ছে। বোরখা পড়িয়ে দেশে দেশে নারীদের শৃঙ্খলিত করে আদিম যুগের দাস প্রথা আবারো ফিরিয়ে আনা হচ্ছে।।

সভ্যতা যখন ক্রমাগত সামনের দিকে এগুচ্ছে তখন ধর্মের দেয়াল তুলে অন্যর ক্ষতি করতে গিয়ে সারাবিশ্বে পিছিয়ে পড়ছে মুসলমানরা।

এই পিছিয়ে পড়া কিছুতেই মেনে নিতে পারছেনা মুসলমানরা।।

নিজেদের মধ্যে দেশে দেশে যুদ্ধ থেকে শুরু করে নিজ দেশের মানুষের আতঙ্কের নাম ও এখন ইসলাম ও মুসলমান।।

ইয়ামেন ও সৌদিতে দিনের পর দিন যুদ্ধ মুসলমানদের ইতিহাসে নতুন কোন যুদ্ধ নয়।

স্বয়ং খলিফা আলী কে হত্যার জন্য তার বিরুদ্ধে উটের যুদ্ধ পরিচালনা করেছেন রাসুলের স্ত্রী আয়েশা।।

শিয়া , সুন্নী, কাদিয়ানি আরো কতো শত শত মাজহাবে বিভক্ত হয়ে মুসলমান মুসলমানের রক্ত খাচ্ছে।।


সারাবিশ্বে মুসলমানদের এই দুর্গতির জন্য দায়ী কোরআন ও হাদিসের বিদ্বেষপূর্ণ কিছু আয়াত ও মুসলমানদের ধর্মান্ধ মধ্য যূগীয় সমাজব্যাবস্হা।।

ডারউইনের বিবর্তনবাদের সাথে খাপ খাইতে না পেরে মুসলমান সরে যেতে থাকে বিজ্ঞান থেকে।

জ্ঞান ও বিজ্ঞান এই দুটো হয়ে যায় মুসলমানদের সবচেয়ে বড় শত্রু।।

মেয়েদের লেখাপড়া করানো যাবেনা , সাবালক হলেই বিয়ে দিয়ে দিতে হবে শুরু হয় এমন ফতোয়াবাজির।

বিজ্ঞান শিক্ষার বদলে মুসলমানদের জন্য গুরুত্ব দেওয়া হয় ধর্মীয় শিক্ষা।

দেশে দেশে এতো ধর্মীয় শিক্ষার স্কুল আপনি আর পৃথিবীতে কোথাও খুঁজে পাবেন না।।

এইখানে আবার মুসলমানদের মধ্যে বিজ্ঞান মনস্ক যে প্রজন্ম টি আছে তাদের করে তোলা হয়েছে ইসলাম বিরোধী।।

মুসলমানদের যেই অংশটি এই ধর্মান্ধ সমাজ ব্যাবস্হার বিরুদ্ধে লড়ছে তাদের আখ্যা দেয়া হচ্ছে নাস্তিক।।।

চরম হাস্যকর সবকিছু ঘটছে এই ধর্মে।।।

মুসলমানদের আচরণে মনে হয় যেনো মানুষ ও মানবতার চাইতে ও ওদের ইসলাম ধর্ম বড়।।


বিশ্ববিখ্যাত বিজ্ঞানী স্টিফেন হকিং তাই এদের সম্পর্কে ভবিষ্যতে বাণী করে গেছেন যে " একদিন এই বিশ্বটা ধ্বংস হবে এই ধর্ম ব্যাবসায়ীদের লোভ ও ক্ষমতার কারণে।""


তরবারি দিয়ে রাজ্য দখল করা ইসলাম এখন দেশে দেশে বোমা মেরে নিরীহ মানুষ হত্যার দুর্নাম কুড়াচ্ছে।

এর জন্য বিধর্মীরা যতোটুকু দায়ী তারচেয়ে ও হাজার , লক্ষ ও কোটিগুণ দায়ী হচ্ছে মুসলমান ও তাদের জেহাদ নামক বর্বর ধর্মগ্রন্থ।।


আইসিস এর মতো জঙ্গী সংগঠন যখন যৌনদাসী হতে আপত্তি করায় নিজ ধর্মের মেয়েদের হত্যা করে তখন ইসলামের পেছনের দিকে গেলে আপনি এই যৌনদাসীদের সত্যতা আর গণিমতের মাল এই দুটোর উত্তর পেয়ে যাবেন।।।


পৃথিবীর মানুষগুলো যখন পৃথিবী ছেড়ে মহাকাশের স্বপ্নে বিভোর ঠিক তখনো মুসলমানরা ৭২ টা হুর আর যৌনদাসী নিয়ে পড়ে আছে।।।

একদিন এই মুসলমানদের চরম অধঃপতনের কারণ হবে এরা নিজেরাই।।

এরপর হয়তো কোন একদিন পৃথিবীতে নতুন আরেকটি ইতিহাস লেখার জন্য আর কোন প্রাণী অবশিষ্ট থাকবেনা।।

ধর্মযুদ্ধে ধ্বংস হবে এই পৃথিবী।।



0 comments
Enjoy
Free
E-Books
on
Just Another Bangladeshi
By
Famous Writers, Scientists, and Philosophers 
Our Social Media
  • Facebook
  • Twitter
  • Pinterest
Our Partners

© 2023 by The Just Another Bangladeshi. Proudly created by Sen

Email address: JustAnotherBangladeshi@gmail.com

This site was designed with the
.com
website builder. Create your website today.
Start Now